ঢাকা, শনিবার, ২২ জানুয়ারি ২০২২ | ৮ মাঘ ১৪২৮ | ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

সাতক্ষীরায় নির্বাচনী সহিংসতা : নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আহত ৮

 সাতক্ষীরায় নির্বাচনী সহিংসতা : নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ আহত ৮

ছবি : গ্লোবালটিভি

সাতক্ষীরা প্রতিনিধি : দুই একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়াই শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হলো দ্বিতীয় ধাপের সাতক্ষীরা সদর উপজেলার ১৩টি ইউনিয়নের ইউপি নির্বাচন। চলছে ভোট গণনার কাজ।

এদিকে, নির্বাচনী সহিংসতায় বৈকারী ইউনিয়নের নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থীসহ ৮ জন আহত হয়েছেন। আজ বৃহস্পতিবার সকাল সাড়ে ৮ টার দিকে এ ঘটনা ঘটে।
আহতদের মধ্যে পাঁচজনকে সাতক্ষীরা সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়েছে। এছাড়া বাকী ১২টি ইউনিয়নে ভোট সুষ্ঠু ও শান্তিপূর্ণভাবে শেষ হয়েছে। সকাল ৮টা থেকে শুরু হয়ে ভোট গ্রহণ চলে বিকাল ৪টা পর্যন্ত।

পুলিশ ও স্থানীয় সূত্রে জানা যায়, সাতক্ষীরার বৈকারী ইউনিয়নের খলিলনগর কেন্দ্রে মোটরসাইকেল প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী গোলাম মোস্তফার পোলিং এজেন্ট বের করে দেওয়ার চেষ্টাকালে দুপক্ষের সংঘর্ষের ঘটনা ঘটে। এতে নৌকা প্রতীকের চেয়ারম্যান প্রার্থী আসাদুজ্জামান অসলেসহ উভয় পক্ষের ৮ জন আহত হন। পরে পুলিশ ঘটনাস্থলে পৌছে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনেন। আহতদের মধ্যে ৫ জনকে সদর হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। একই ইউনিয়নের কাথন্ডা ওয়ার্ডের মেম্বর প্রার্থী আব্দুল জলিলের বাড়িতেও হামলা করা হয় বলে জানা গেছে। সকাল থেকে ভোটকেন্দ্রে ভোটারদের লম্বা লাইন লক্ষ্য করা গেছে। আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারি বাহিনীর তৎপরতা ছিল লক্ষনীয়। বৈকারী ছাড়া বাকি ১২টি ইউনিয়নে আর কোন নির্বাচনী সহিংসতার খবর পাওয়া যায়নি। এরআগে সকালে কেন্দ্রে কেন্দ্রে ব্যালট পেপার পৌছানোর পর শুরু হয় ভোট গ্রহন।

সাতক্ষীরা জেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা যায়, নির্বাচনে ১৩টি ইউনিয়নে ৬৪জন চেয়ারম্যান, ৪৯১ জন সাধারন সদস্য পদে ও ১৬০ জন সংরক্ষিত নারী সদস্য পদে প্রতিদ্বদ্বিতা করেছেন। ১২৬ টি কেন্দ্রে ভোট গ্রহন অনুষ্ঠিত হয়। প্রতিটি কেন্দ্রে একজন এস.আইএর নেতৃত্বে ৫জন পুলিশ ও ১৭জন আনসার সদস্য দায়িত্ব পালন করেছেন। এছাড়াও নির্বাহী ও জুডিশিয়াল ম্যাজিস্ট্রেট, র‌্যাব ও বিজিবি টহল দিয়েছেন। এবারের নির্বাচনে সদর উপজেলায় মোট ২ লাখ ৬৬ হাজার ৬৫৩ জন ভোটার তাদের ভোটাধিকার প্রয়োগ করেছেন। এর মধ্যে পুরুষ ভোটার ১ এক লাখ ৩৪ হাজার ২২৪ জন ও নারী ভোটার রয়েছেন ১ লাখ ৩২ হাজার ৪২৯ জন।

বৈকারী ইউনিয়নের দায়িত্বে থাকা পুলিশের পরিদর্শক আবুল কালাম জানান,দুপক্ষের সংঘর্ষের খবর পেয়ে পুলিশ তাৎক্ষনিক ঘটনাস্থলে পৌছে লাটিচার্জ করে দুপক্ষকে ছত্রভঙ্গ করে। বর্তমানে পরিস্থিতি আইনশৃঙ্খলা রক্ষাকারিবাহিনীর নিয়ন্ত্রণে রয়েছে বলে জানান তিনি।

সাতক্ষীরা জেলা নির্বাচন কর্মকর্তা নাজমুল কবির জানান, দু’একটি বিচ্ছিন্ন ঘটনা ছাড়া শান্তিপূর্ণভাবে ১৩টি ইউনিয়নে ভোট গ্রহণ শেষ হয়েছে। চলছে ভোট গণনার কাজ।

এমএস