ঢাকা, শনিবার, ২২ জানুয়ারি ২০২২ | ৮ মাঘ ১৪২৮ | ১৯ জমাদিউস সানি ১৪৪৩

নওগাঁর রাণীনগরের ৮ ইউনিয়নের ৫টিতেই নৌকার জয়লাভ

নওগাঁর রাণীনগরের ৮ ইউনিয়নের ৫টিতেই নৌকার জয়লাভ

সংগৃহীত

নওগাঁ প্রতিনিধি : নওগাঁর রাণীনগর উপজেলার ৮টি ইউনিয়নে শান্তিপূর্ণভাবে ভোটগ্রহণ শেষ হয়েছে। ভোটে চেয়ারম্যান পদে ৮ ইউনিয়নের মধ্যে ৫টিতেই আওয়ামী লীগ মনোনিত নৌকা প্রতিকের প্রার্থীরা জয়লাভ করেছেন। এছাড়া ১টি আওয়ামী লীগ বিদ্রোহী এবং ২টি ইউনিয়নে বিএনপি’র (স্বতন্ত্র) প্রার্থী জয়লাভ করেছেন। বৃহস্পতিবার রাতে বেসরকারি ফলাফলে তাদেরকে বিজয়ী ঘোষণা করা হয়।

রাণীনগর উপজেলা নির্বাচন অফিস সূত্রে জানা গেছে, খট্রেশ্বর ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে চন্দনা সারমিন রুমকি (নৌকা) ১১হাজার ৩৫৬ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং নিকটতম প্রতিদ্বন্দ্বি বিএনপি’র (স্বতন্ত্র) প্রার্থী ফরহাদ হোসেন (মটর সাইকেল) পেয়েছেন এক হাজার ১৪ ভোট,কাশিমপুর ইউনিয়নে বিএনপি’র (স্বতন্ত্র) প্রার্থী মকলেছুর রহমান বাবু (আনারস) ৪ হাজার ৬২৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং নিকটত আলমগীর হোসেন (নৌকা) পেয়েছেন ৩হাজার ৪১৫ ভোট, গোনা ইউনিয়নে আবদুল খালেক (নৌকা) ৩হাজার ৩৯৭ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং নিকটতম বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী আবদুল আরিফ রাঙ্গা (ঘোড়া) পেয়েছেন ২হাজার ৯১৩ ভোট,পারইল ইউনিয়নে বিএনপি’র (স্বতন্ত্র) জাহিদুর রহমান (ঘোড়া) ৪হাজার ৮৯৩ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং নিকটতম নুরে আলম সিদ্দিকী দুলাল (নৌকা) পেয়েছেন ৩হাজার ৫০৩ ভোট,বড়গাছা ইউনিয়নে আবদুল মতিন মাস্টা (নৌকা) ৭হাজার ৮০৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং নিকটতম বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী মহসিন মল্লিক (ঘোড়া) পেয়েছেন ৪হাজার ২৫৭ ভোট, কালীগ্রাম ইউনিয়নে বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী আবদুল ওহাব চাঁন (ঘোড়া) ৮হাজার ৩৩৫ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং নিকটতম সুবাস চন্দ্র সরকার বাবলু (নৌকা) পেয়েছেন ৪হাজার ৪১৫ ভোট,একডালা ইউনিয়নে শাহজাহান আলী (নৌকা) ৮হাজার ৯২৪ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং নিকটতম বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রাথী রুহুল আমিন (মটর সাইকেল) পেয়েছেন ৫হাজার ২৩০ ভোট ও মিরাট ইউনিয়নে জিয়াউর রহমান (নৌকা) ৫হাজার ৮১৯ ভোট পেয়ে নির্বাচিত হয়েছেন এবং নিকটতম বিদ্রোহী (স্বতন্ত্র) প্রার্থী ফখরুল (ঘোড়া) পেয়েছেন ৩হাজার ৩৬৭ ভোট।

সংশ্লিষ্টরা জানান, ৮টি ইউনিয়নে চেয়ারম্যান পদে ৪৮জন, সংরক্ষিত আসনে ৮৮জন এবং সাধারণ সদস্য (মেম্বার) পদে ২৬৬জন প্রার্থী প্রতিদ্বন্দ্বিতা করেন।

নির্বাচন কর্মকর্তা রেজাউল ইসলাম জানান, সকাল থেকেই প্রতিটি কেন্দ্রে উৎসবমুখর পরিবেশে অবাধ, সুষ্ঠু, শান্তিপূর্ণভাবে ভোট গ্রহন সম্পন্ন হয়। কোথাও কোন অপ্রীতিকর ঘটনা ঘটেনি এবং কোন প্রার্থীর নিকট থেকে কোন অভিযোগও পাওয়া যায়নি।

এমএস