ঢাকা, রবিবার, ৩ জুলাই ২০২২ | ১৮ আষাঢ় ১৪২৯ | ৪ জ্বিলহজ্জ ১৪৪৩

ইউএনওর গাড়ির ধাক্কায় প্রাণ গেলো সাংবাদিকের

ইউএনওর গাড়ির ধাক্কায় প্রাণ গেলো সাংবাদিকের

ছবিঃ সংগৃহীত

নাটোরের নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তার সরকারি গাড়ির ধাক্কায় প্রাণ গেছে মোটরসাইকেল আরোহী এক সাংবাদিকের।

সোমবার নাটোর-বগুড়া মহাসড়কের নিংগইন তেল পাম্প এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত সাংবাদিকের নাম মো. সোহেল রানা (৩৪)। তিনি আগপাড়া শেরকোল বন্দর উচ্চ বিদ্যালয় অ্যান্ড কলেজের সহকারী শিক্ষক ও সিংড়া প্রেসক্লাবের সদস্য। তিনি বগুড়া থেকে প্রকাশিত দৈনিক দুরন্ত সংবাদের সিংড়া উপজেলা প্রতিনিধি হিসেবে কাজ করতেন।

সিংড়া থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা নুর ই আলম সিদ্দিকী জানান, নাটোরের সিংড়া গোল-ই আফরোজ সরকারি কলেজের বাংলা বিভাগের প্রভাষক মানসী দত্ত (মৌমিতা) নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুখময় সরকারের সহধর্মিণী। সোমবার সকালে ইউএনওর স্ত্রীকে তার কর্মস্থলে পৌঁছে দিতে সিংড়ায় যায় সরকারি গাড়িটি।

সিংড়ায় পৌঁছানোর আগে নিংগইন তেল পাম্প এলাকায় ইউএনওর গাড়ির সাথে মুখোমুখি সংঘর্ষে নিহত হন মোটরসাইকেল আরোহী সাংবাদিক সোহেল রানা। পরে নলডাঙ্গার ইউএনও সুখময় সরকার ঘটনাস্থলে আসেন।

আহত অবস্থায় স্থানীয়রা সোহেল রানাকে উদ্ধার করে উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে উন্নত চিকিৎসার জন্য দায়িত্বরত চিকিৎসকরা তাকে রাজশাহী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে স্থানান্তর করেন। রাজশাহী নিয়ে গেলে দুপুর ১টার দিকে মারা যান সোহেল রানা।

ঘটনার পর দ্রুত ঘটনাস্থল ত্যাগ করে কলেজে যান ইউএনওর সহধর্মিণী মানসী দত্ত মৌমিতা। পরে হাইওয়ে পুলিশ ও ফায়ার সার্ভিসের কর্মীরা এসে গাড়ি দুটি উদ্ধার করে।

নলডাঙ্গা উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুখময় সরকার স্ত্রীকে কর্মস্থলে পৌঁছে দেয়ার কথা অস্বীকার করে বলেন, নলডাঙ্গা ছোট উপজেলা, সেখানে পেট্রোল সঙ্কটের কারণে সিংড়ায় পেট্রোল নিতে পাঠিয়েছিলাম। 

এএইচ