ঢাকা, বুধবার, ৩০ নভেম্বর ২০২২ | ১৫ অগ্রহায়ণ ১৪২৯ | ৬ জমাদিউল আউয়াল ১৪৪৪

কেঁদে ও কাঁদিয়ে টেনিস থেকে বিদায় নিলেন ফেদেরার

কেঁদে ও কাঁদিয়ে টেনিস থেকে বিদায় নিলেন ফেদেরার

ছবিঃ: সংগৃহীত

হারে শেষ হলো টেনিসের রজার ফেদেরার অধ্যায়। লেভার কাপে ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচে সুইস কিংবদন্তির সঙ্গী ছিলেন চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রাফায়েল নাদাল। ম্যাচ শেষে কেঁদেছেন দুইজনই। 

শনিবার অনুষ্ঠিত ম্যাচে ফ্রান্সিস টিয়াফো ও জ্যাক সক জুটির কাছে ৪-৬, ৭-৬ (৭/২), ১১-৯ হেরেছেন ফেদেরার-নাদাল জুটি।

হাঁটুর ইনজুরির কারণে ২০২১ সালের উইম্বলডনের পর থেকে মাঠের বাইরে ছিলেন ফেদেরার। তবু টেনিস ভক্তরা অপেক্ষায় ছিলেন। অপেক্ষায় ছিলেন হয়তো ফেদেরার নিজেও। কিন্তু শরীর সায় না দেয়ায় শেষ পর্যন্ত বিদায় নেওয়ার ঘোষণা দেন গত সপ্তাহে।

ম্যাচ শেষে কান্নাজড়িত কণ্ঠে ২০ বারের গ্রান্ড স্লামজয়ী ফেদেরার বলেন, ‌‘আজকের দিনটা অসাধারণ। আমি খুশি, দুঃখিত নই। টেনিস কোর্টে আসলেই দারুণ অনুভূতি হয়। কোর্টে নামার আগে জুতোর ফিতে আরও একবার বাঁধতে হয়েছে, সবকিছু শেষবারের মতো করেছি। আমি কোনো চাপ অনুভব করিনি। যদিও ভেবেছি হয়তো ভালো কিছুই হবে শেষ ম্যাচে। হারলেও ম্যাচটি দারুণ উপভোগ করেছি। রাফার সঙ্গে খেলেছি, সব কিংবদন্তিরা এখানে হাজির হয়েছেন, সব কিংবদন্তির উদ্দেশে বলতে চাই, ধন্যবাদ’।

টেনিস কোর্ট আর জীবনের নানা উত্থান-পতনে তিনি হয়ে উঠেছেন টেনিসের মহাতারকা। নিজেকেই নিজে ছাড়িয়ে গেছেন বহুবার। তবু নক্ষত্রদেরও তো যেতে হয়, কবির বলে বলে যাওয়া সেই সত্য মেনেই আপন কক্ষপথ ছাড়লেন রজার ফেদেরার। যাওয়ার সময় বলে গেলেন তার মনের কোণে লুকিয়ে থাকা কথা।

ক্যারিয়ারের শেষ ম্যাচ খেলে মাইক্রোফোন হাতে নিয়ে লম্বা দীর্ঘশ্বাস ফেলে ফেদেরার বললেন, ‘কোনোমতে কেটে গেল, তাই না? আমি খুশি। তোমাদের যেমন বলছিলাম। আমার কোনো দুঃখ নেই।’

তিনি বললেন, ‘আরো একবার জুতোর ফিতেটা বাঁধলাম। যা-ই করলাম, শেষবারের মতো করলাম। সমর্থক, বন্ধু, পরিবার, সতীর্থদের পাশে পেয়ে দারুণ লাগছে। খুব ভালো একটা ম্যাচ হলো। আমি খুশি।’

এএইচ