ঢাকা, শুক্রবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২৩ | ৭ আশ্বিন ১৪৩০ | ৬ রবিউল আউয়াল ১৪৪৫

কিশোরগঞ্জে বিএনপি-আওয়ামী লীগ পাল্টাপাল্টি মিছিল-সমাবেশ

কিশোরগঞ্জে বিএনপি-আওয়ামী লীগ পাল্টাপাল্টি মিছিল-সমাবেশ

ছবি: গ্লোবাল টিভি

ফয়জুল ইসলাম পিংকু, কিশোরগঞ্জ: কেন্দ্রীয় কর্মসূচির অংশ হিসেবে কিশোরগঞ্জ জেলা বিএনপি গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে ১০ দফা দাবিতে মিছিল ও জনসমাবেশ করেছে। শনিবার কিশোরগঞ্জ ঐতিহাসিক রথখোলা ময়দানে বিএনপি জনসমাবেশ করে। এতে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত থেকে বক্তব্য রাখেন বিএনপি'র স্থায়ি কমিটির সদস্য নজরুল ইসলাম খান। 

জনসমাবেশে তিনি বলেন, যে দেশের মানুষ বেকার থাকে, যে দেশের মানুষ গৃহহীন থাকে, যে দেশের মানুষ খাদ্য কস্টে থাকে, যে দেশের মানুষ উজ্জ্বল ভবিষ্যতের স্বপ্ন দেখতে পারেনা। সে দেশে বড় বড় দালানকোঠা, বড় বড় ব্রীজ, বড় বড় প্রকল্প হলো গোরস্তানের আলোসজ্জার মতো। যে গুলো মানুষের কোন কাজে আসে না।

তিনি আরও বলেন, দেশে শিক্ষিত বেকারের সংখ্যা বাড়ছে। তাই সন্ত্রাসের রাজনীতি নয়, বিএনপি গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় সুষ্ঠু নির্বাচনের মাধ্যমে ক্ষমতায় এসে, দেশের মানুষের জন্য কাজ করবে।

জনসমাবেশে অন্যান্যদের মাঝে আরও বক্তব্য রাখেন জেলা বিএনপির সভাপতি শরীফুল আলম, সাধারণ সম্পাদক মাজহারুল ইসলাম, যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক খালেদ সাইফুল্লাহ সোহেলসহ নেতৃবৃন্দ।

জানা যায়, রথখোলা মাঠে বিএনপি সমাবেশের অনুমতি না পেলেও হাজার হাজার কর্মী-সমর্থকদের অংশগ্রহণে সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। এর আগে জেলা শহরের বিভিন্ন প্রান্ত থেকে বিএনপির নেতাকর্মীরা দলে দলে সমাবেশ স্থলে যোগ দেন। পরে জনসভা শেষে শান্তি শৃঙ্খলার মাঝে সকলেই সভাস্থল ত্যাগ করেন।

অপর দিকে, বিএনপি জামায়াতের নৈরাজ্যের প্রতিবাদে শান্তি মিছিল ও সমাবেশ পালন করে জেলা আওয়ামী লীগ। বিকেলে সৈয়দ নজরুল ইসলাম চত্বরে আওয়ামী লীগ ও অঙ্গসংগঠন এ শান্তি সমাবেশ করে। সমাবেশ শেষে শান্তি মিছিল বের করে জেলা আওয়ামী লীগ। মিছিলটি শহরের বিভিন্ন সড়ক প্রদক্ষিণ শেষে জেলা আওয়ামী লীগ কার্যালয়ে অবস্থান নেয়। 

এসময় তারা ঘোষণা করেন, মিছিল-সমাবেশের নামে বিএনপি যদি নৈরাজ্য সৃষ্টি করে, জনগণের জানমালের ক্ষতি করে, তাহলে তা যেকোন মূল্যে প্রতিহত করা হবে। 

নেতাকর্মীরা আরও বলেন, বিদেশী শক্তির উপর ভর করে ক্ষমতায় আসার স্বপ্ন বাংলার মাটিতে কখনও বাস্তবায়ন হবে না। ক্ষমতায় আসতে হলে অবশ্যই গণতান্ত্রিক প্রক্রিয়ায় আসতে হবে।