ঢাকা, সোমবার, ১৫ এপ্রিল ২০২৪ | ১ বৈশাখ ১৪৩১ | ৫ শাওয়াল ১৪৪৫

অষ্টমবার ব্যালন ডি’অর পেলেন মেসি

অষ্টমবার ব্যালন ডি’অর পেলেন মেসি

ফাইল ছবি

অষ্টমবার ব্যালন ডি’অর পেলেন লিওনেল মেসি। মেয়েদের ফুটবলে ব্যালন ডি’অর পেয়েছেন আইতানা বোনমাতি। মেসির বয়স এখন ৩৬ বছর। এই বয়সে এসেও বিশ্বের সেরা ফুটবলারের সম্মান পাওয়া কম কথা নয়। কিন্তু বর্তমানে ফুটবল দুনিয়ার অন্যতম সেরা ফুটবলার মেসির পক্ষে সবই সম্ভব। বার্সেলোনা ছেড়ে দেয়ার পরও তাই মেসি অপ্রতিরোধ্য। তিনি সেরার সেরা। গত বছর কাতারে যেভাবে তিনি আর্জেন্টিনাকে বিশ্বকাপ জেতাতে সাহায্য করেছেন, তরপর তার হাতেই যে আবার ব্যালন ডি অঁরের পুরস্কার উঠতে চলেছে, তা অনুমান করা কঠিন ছিল না। বাস্তবে হয়েছেও তাই। 

কিলিয়ান এমবাপে, আর্লিং হলান্ডকে পিছনে ফেলে দিয়েছেন মেসি। ফুটবল মাঠে যেমন মাখনের মধ্যে ছুরি চালাবার মতো মসৃণভাবে ড্রিবল করে প্রতিপক্ষের চ্যালেঞ্জ অতিক্রম করে যান মেসি, সেরা ফুটবলার হওয়ার ক্ষেত্রেও তা-ই হয়েছে। সাদা শার্ট, কালো কোট, কালো বো টাই পরে মঞ্চে আসেন মেসি। সঙ্গে ছিলেন স্ত্রী ও তিন ছেলে। এই অনুষ্ঠান পরিচালনা করছিলেন বিখ্যাত ফুটবলার দ্রোগবা ও প্রখ্যাত উপস্থাপক বেরিবার্ট। দর্শকের আসনে বসেছিলেন জোকোভিচ। মেসিই যে ব্যালন ডি অঁর পাচ্ছেন তার ঘোষণা করেন বেকহ্যাম। মেসি বলেছেন, আমার ফুটবল জীবন যে এই পর্যায়ে পৌঁছাবে তা ভাবতে পারিনি। আমার প্রতি ভাগ্য সুপ্রসন্ন। আমি সেরা দলে খেলেছি। তাতে কাপ ও পুরস্কার জেতা সহজ হয়েছে। এখানে উপস্থিত থেকে পুরস্কার নিতে পেরে খুব ভালো লাগছে।

মেসি এখন যুক্তরাষ্ট্রে মেজর লিগে ইন্টার মিয়ামির হয়ে খেলেন। আগামী বিশ্বকাপে তাকে আর্জেন্টিনার হয়ে খেলতে দেখা যাবে কি না, তা বলা যাচ্ছে না। তবে ২০২৪ সালের কোপা অ্যামেরিকা কাপে তিনি আর্জেন্টিনার হয়ে খেলবেন বলে জানিয়েছেন। বোনমাতির সাফল্যও গুরুত্বপূর্ণ মেয়েদের ফুটবলে স্পেনকে বিশ্বচ্যাম্পিয়ন করার পিছনে বোনমাতির অবদান ছিল অনস্বীকার্য। 

ব্যালন ডি’অর পাওয়ার পর তিনি বলেছেন, স্পেনে আমরা ফুটবল নিয়ে বাঁচি। আমাদের প্রচুর প্রতিভাবান ফুটবলার আছে। মাঠের ভিতরে ও বাইরে সমান বলিষ্ঠ বোনমাতি। মাঠের বাইরে স্পেনের সাবেক ফুটবল কর্তা রুবিয়ালেসের আচরণ. কোচের ব্যবহার, কাজ করার পরিবেশ নিয়ে তিনি সোচ্চার হয়েছেন। আর মেয়েদের বিশ্বকাপে তিনি ছিলেন স্পেনের সেরা ফুটবলার। আর যারা পুরস্কার পেলেন লেভ ইয়াসিন ট্রফি পেয়েছেন মার্তিনেজ। সেরা স্ট্রাইকার হিসাবে গার্ড মুলার ট্রফি পেয়েছেন আর্লিং হলান্ড। দাতব্য কাজের সঙ্গে জড়িয়ে থাকার জন্য সক্রেতিস পুরস্কার পেয়েছেন ভিনিসিয়ুস জুনিয়র। ২১ বছরের কম বয়সিদের জন্য কোপা ট্রফি পেয়েছেন জুড বেলিংহাম। পুরুষদের সেরা ক্লাব হয়েছে ম্যানচেস্টার সিটি এবং মেয়েদের সেরা ক্লাবের সম্মান পেয়েছে বার্সেলোনা। 

ডয়চে ভেলে