ঢাকা, শুক্রবার, ২৩ ফেব্রুয়ারি ২০২৪ | ১১ ফাল্গুন ১৪৩০ | ১২ শা‘বান ১৪৪৫

ইহুদি-বিদ্বেষের প্রতিবাদে প্যারিসে বিশাল মিছিল

ইহুদি-বিদ্বেষের প্রতিবাদে প্যারিসে বিশাল মিছিল

ছবি: সংগৃহীত

ইহুদি-বিদ্বেষের প্রতিবাদে প্যারিসে বিশাল এক মিছিলে যোগ দিয়েছেন সাবেক প্রেসিডেন্টরা। ছিলেন বহু আইনসভার সদস্য। বামপন্থিরা অবশ্য মিছিলে অংশ নেননি। 

রবিবার প্যারিসের রাস্তায় কয়েক হাজার মানুষ প্রতিবাদ মিছিলে অংশ নিয়েছেন। ইসরায়েল-হামাস সংঘাত শুরু হওয়ার পর ইহুদি-বিদ্বেষ বাড়ছে এই অভিযোগে এদিনের মিছিলের আয়োজন করা হয়। বর্তমান প্রেসিডেন্ট এমানুয়েল মাক্রোঁ মিছিলে অংশ না নিলেও প্রতিবাদ আয়োজনের প্রতি তার সমর্থন জানিয়েছেন। তবে সাবেক দুই প্রেসিডেন্ট এদিনের মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন। মিছিলে অংশ নিয়েছিলেন সেনেট এবং ফরাসি পার্লামেন্টের নিম্নকক্ষের একাধিক সদস্য। ছিলেন দেশের প্রধানমন্ত্রী।

এছাড়াও হামাসের আক্রমণে ৭ অক্টোবর ইসরায়েলে যে ফরাসি নাগরিকদের মৃত্যু হয়েছে, তাদের পরিবারের সদস্যেরাও ছিলেন মিছিলে। যারা এখনো নিখোঁজ অথবা হামাসের হাতে পণবন্দি, তাদের পরিবারের সদস্যরাও মিছিলে অংশ নিয়েছেন। অতি দক্ষিণপন্থিদের অংশগ্রহণ অতি দক্ষিণপন্থি ন্যাশনাল রেলির প্রধান মেরিন লে পেন-ও এদিনের মিছিলে যোগ দিয়েছিলেন। ফরাসি রাজনীতির প্রেক্ষাপটে যা অত্যন্ত উল্লেখযোগ্য একটি ঘটনা। মেরিনের বাবা অতি দক্ষিণপন্থি দলের প্রতিষ্ঠাতা। হলোকাস্ট হয়নি, এমনটাই মনে করেন তিনি। যার জন্য তার বিরুদ্ধে মামলাও হয়েছে। সেই দল এদিনের মিছিলে যোগ দেওয়ায় রীতিমতো সাড়া পড়ে যায়। একটি বামপন্থি সংগঠন মেরিনকে আটকানোর চেষ্টা করেছিল। কিন্তু পুলিশ তাদের আটক করে। অতি বামপন্থি দলগুলি এদিনের মিছিল বয়কট করেছিল। তাদের বক্তব্য, প্রতিশোধের নামে গাজায় ম্যাসাকার চলছে। তা নিয়ে মিছিলে একটি শব্দও ব্যয় করা হয়নি। সে কারণেই তারা এই মিছিল বয়কট করছেন বলে জানিয়েছেন বাম নেতারা। 

ডয়চে ভেলে