ঢাকা, মঙ্গলবার, ১৭ মে ২০২২ | ২ জ্যৈষ্ঠ ১৪২৯ | ১৬ শাওয়াল ১৪৪৩

পাবনায় স্বরকল্পনের ‘পরানের গহীন ভিতর’ শীর্ষক আবৃত্তি সন্ধ্যা কাল

পাবনায় স্বরকল্পনের ‘পরানের গহীন ভিতর’ শীর্ষক আবৃত্তি সন্ধ্যা কাল

ফাইল ছবি

আবহমান বাংলা ও বাঙালির অন্যতম সেরা ভাষাশিল্পী, সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হক রচিত ‘পরানের গহীন ভিতর’ শীর্ষক আবৃত্তি সন্ধ্যার আয়োজন করেছে পাবনার বনমালী শিল্পকলা কেন্দ্র।

ইউনিভার্সাল গ্রুপের পৃষ্ঠপোষকতায় শুক্রবার (৭ জানুয়ারি) সন্ধ্যা সাড়ে ৬টায় শিল্পকলা কেন্দ্রের নিজস্ব মিলনায়তনে মোস্তাফিজ রিপনের নির্দেশনায় ‘স্বরকল্পন আবৃত্তিচক্র’ এ প্রযোজনা পরিবেশন করবে।

পরানের গহীন ভিতর-এর নির্দেশক মোস্তাফিজ রিপন বলেন, “সৈয়দ শামসুল হকের ‘পরানের গহীন ভিতর’ কাব্যগ্রন্থটি বাংলা সাহিত্যের এক অনন্য সম্পদ। লোকজ শব্দ আর হৃদয়ে কান পেতে তুলে আনা স্বগতঃবিলাপে কী অবলীলায় তিনি বলে গেলেন, ‘মানুষ কী জানে ক্যান মোচড়ায় মানুষের মন’ এমন জীবন্ত অনুভূতির পূর্ণ প্রকাশে মানুষের পরানের গহীনে মোচড় দেয়। এমনই জীবন কথনে সাজানো  ‘পরানের গহীন ভিতর’ নিয়ে আবৃত্তি প্রযোজনা মানুষের অনুভূতিকে আলোড়িত করবে।”

স্বরকল্পন আহবায়ক কমিটি প্রধান শাহীদুল হক মিল্কী বলেন, "সব্যসাচী লেখক সৈয়দ শামসুল হকের এক অনন্য সাধারণ সৃষ্টি 'পরানের গহীন ভিতর’ কাব্যগ্রন্থ। এর প্রতিটি কবিতা প্রাণের গভীরতর অনুভুতিগুলোর সাবলীল আর নান্দনিক উপস্থাপনা। মোস্তাফিজ রিপনের  নির্দেশনায় দীর্ঘ সময় অনুশীলন শেষে স্বরকল্পনের আবৃত্তিশিল্পীরা এই প্রযোজনাটির প্রথম মঞ্চায়ন করছে। আশা করি কবিতা ও আবৃত্তি, সকলের ভালো লাগবে।"

স্বরকল্পন আহবায়ক কমিটির সদস্য সোহেল আহমেদ বলেন, “ আমরা একঝাঁক তরুণ হৃদয় শুক্রবার সন্ধ্যায় মিলিত হবো প্রাণের উচ্ছ্বাসে। ‘পরাণের গহীন ভিতর’ সৈয়দ শামসুল হকের এমন এক অনবদ্য সৃষ্টি, যেখানে প্রতিটি বাঙালির হৃদয়বৃত্তির বহিঃপ্রকাশ ঘটেছে অত্যন্ত সুদক্ষতার সঙ্গে। আমরা বিশ্বাস করি আমাদের দীর্ঘ পাঁচ মাসের পরিশ্রম সেই সন্ধ্যায় আপনাদের আনন্দের রসদ যোগাবে।”

স্বরকল্পন আবৃত্তিচক্রের সাধারণ ও প্রাক্তন নির্বাহী সদস্য মো. রাশেদুর রহমান বলেন, “অতিমারির ভয়াল আগ্রাসনের চলমান পরিস্থিতির মধ্যে অনেক প্রতিকূলতা অতিক্রম করে আশা করি এই অনুষ্ঠানটি আমাদের সমৃদ্ধ প্রযোজনা হিসেবে পরিচিতি পাবে।”

রূপকথার কাব্য নিবেদিত স্বরকল্পনের এ প্রযোজনায় অংশ নেবেন, আবৃত্তিশিল্পী জনি মুহাম্মদ নুর উদ্দিন, আশরাফি জাহান মিতু, আনতারা রহমান প্রীতি, আশরাফি জাহান মিতু, মনোয়ার হোসেন, বর্নালী সরকার, কমল কান্তি সরকার, তৃষা খন্দকার, শহীদুল হক মিল্কী, সামিরা মাশরুহা, মুনতাহাব মুনিয়া, সোহেল আহমেদ, রিফাত আরা ইসলাম, আনতারা রহমান প্রীতি, খুরশিদা ইয়াসমিন, মাজেদা পারভীন বকুল, তৃষা খন্দকার, মুনতাহাব মুনিয়া, বর্নালী সরকার, খুরশিদা ইয়াসমিন, শহীদুল হক মিল্কী, মাজেদা পারভীন বকুল, হাবিবুল্লাহ জোয়াদ্দার, হাবিবুল্লাহ জোয়াদ্দার, আরিফ আনোয়ার,  সামিরা মাশরুহা ও সোহেল আহমেদ।

এছাড়াও আলোক প্রক্ষেপণে রয়েছেন মারুফ, সবুজ, স্বপন,  শব্দ নিয়ন্ত্রণে শামীম, সহযোগিতা শিরোন, ইসাহক, আছাদ। মঞ্চ পরিকল্পনায় রাশেদুল কবির, বাঁশিতে মোবারক হোসাইন ও দোতরায় সজীব।

এমএস